'১০ মার্ডার হলেও মাঠ থেকে সরব না' - দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ

নরসিংদীর শিবপুর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াস সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা বলেছেন, সামনে নির্বাচন আসবে, যদি সেই নির্বাচনে ১০টি মার্ডারও হয় আমি সিরাজুল ইসলাম মোল্লা মাঠ থেকে সরব না। ইউপি নির্বাচনে যে কোনো মূল্যে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নৌকার প্রার্থীদের বিজয়ী করতে হবে। নৌকার বাইরে কোনো আপস চলবে না। তাই যে কোনোভাবে নৌকার বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে; যত কিছুই হোক না কেন। প্রশাসনের লোক বলেন আর দলীয় বলেন, সবকিছুই কিন্তু আল্লাহর রহমতে আমার পক্ষে মেনটেইন করা সম্ভব।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিবপুরের ইটাখোলায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সাবেক এই সংসদ সদস্য বলেন, আমি সংসদ সদস্য থাকাকালীন শিবপুরে কী

উন্নয়ন হয়েছে, আর বর্তমানে কী উন্নয়ন হচ্ছে- আপনারা তা দেখছেন। ইটাখোলা-সিঅ্যান্ডবি, শিবপুর-দুলালপুর, কামরাব রাস্তা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চারতলা ভবন এবং উপজেলা প্রশাসন ভবন, নদী খনন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ আমার মাধ্যমেই হয়েছে। বাংলাদেশের ১৪টি আদর্শ উপজেলার মধ্যে শিবপুর উপজেলার নাম আমি অন্তর্ভুক্ত করেছিলাম।

শিবপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন শিবপুর যুবলীগের সভাপতি তাজুল ইসলাম মোল্লা। এতে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন শিবপুর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াস সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। এছাড়া জেলা যুবলীগের সভাপতি বিজয় কৃষ্ণ ঘোষামী, ফকরুল ইসলাম মিতু, শিবপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামাল হোসেনসহ যুবলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

২০১৮ সালের

৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে অংশ নিয়েছিলেন তৎকালীন সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। ভোট গ্রহণের দিন উপজেলার কুন্দারপাড়া এলাকার একটি কেন্দ্রে মিলন মিয়া নামে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর একজন এজেন্ট খুন হন। ওই ঘটনায় নিহত মিলনের স্ত্রী পারভীন বেগম বাদী হয়ে সিরাজুল ইসলামকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। পরে পুলিশের তদন্তে সিরাজুল ও তার ভাইসহ কয়েকজনকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাবেক সাংসদ সিরাজুল ইসলাম মোল্লা সাংবাদিকদের বলেন, আমি হত্যার রাজনীতিতে বিশ্বাসী নই। কেউ যাতে হত্যার রাজনীতি করতে না পারে- তাদের হুঁশিয়ারি দেওয়াই আমার এ বক্তব্যের উদ্দেশ্য।

নরসিংদীর শিবপুর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াস সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা বলেছেন, সামনে নির্বাচন আসবে, যদি সেই নির্বাচনে ১০টি মার্ডারও হয় আমি সিরাজুল ইসলাম মোল্লা মাঠ থেকে সরব না। ইউপি নির্বাচনে যে কোনো মূল্যে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নৌকার প্রার্থীদের বিজয়ী করতে হবে। নৌকার বাইরে কোনো আপস চলবে না। তাই যে কোনোভাবে নৌকার বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে; যত কিছুই হোক না কেন। প্রশাসনের লোক বলেন আর দলীয় বলেন, সবকিছুই কিন্তু আল্লাহর রহমতে আমার পক্ষে মেনটেইন করা সম্ভব।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিবপুরের ইটাখোলায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সাবেক এই সংসদ সদস্য বলেন, আমি সংসদ সদস্য থাকাকালীন শিবপুরে কী

উন্নয়ন হয়েছে, আর বর্তমানে কী উন্নয়ন হচ্ছে- আপনারা তা দেখছেন। ইটাখোলা-সিঅ্যান্ডবি, শিবপুর-দুলালপুর, কামরাব রাস্তা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চারতলা ভবন এবং উপজেলা প্রশাসন ভবন, নদী খনন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ আমার মাধ্যমেই হয়েছে। বাংলাদেশের ১৪টি আদর্শ উপজেলার মধ্যে শিবপুর উপজেলার নাম আমি অন্তর্ভুক্ত করেছিলাম।

শিবপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন শিবপুর যুবলীগের সভাপতি তাজুল ইসলাম মোল্লা। এতে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন শিবপুর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াস সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। এছাড়া জেলা যুবলীগের সভাপতি বিজয় কৃষ্ণ ঘোষামী, ফকরুল ইসলাম মিতু, শিবপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামাল হোসেনসহ যুবলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

২০১৮ সালের

৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে অংশ নিয়েছিলেন তৎকালীন সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। ভোট গ্রহণের দিন উপজেলার কুন্দারপাড়া এলাকার একটি কেন্দ্রে মিলন মিয়া নামে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর একজন এজেন্ট খুন হন। ওই ঘটনায় নিহত মিলনের স্ত্রী পারভীন বেগম বাদী হয়ে সিরাজুল ইসলামকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। পরে পুলিশের তদন্তে সিরাজুল ও তার ভাইসহ কয়েকজনকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাবেক সাংসদ সিরাজুল ইসলাম মোল্লা সাংবাদিকদের বলেন, আমি হত্যার রাজনীতিতে বিশ্বাসী নই। কেউ যাতে হত্যার রাজনীতি করতে না পারে- তাদের হুঁশিয়ারি দেওয়াই আমার এ বক্তব্যের উদ্দেশ্য।

‘১০ মার্ডার হলেও মাঠ থেকে সরব না’

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১২ নভেম্বর, ২০২১ | ১১:৪৪ 50 ভিউ

নরসিংদীর শিবপুর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াস সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা বলেছেন, সামনে নির্বাচন আসবে, যদি সেই নির্বাচনে ১০টি মার্ডারও হয় আমি সিরাজুল ইসলাম মোল্লা মাঠ থেকে সরব না। ইউপি নির্বাচনে যে কোনো মূল্যে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নৌকার প্রার্থীদের বিজয়ী করতে হবে। নৌকার বাইরে কোনো আপস চলবে না। তাই যে কোনোভাবে নৌকার বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে; যত কিছুই হোক না কেন। প্রশাসনের লোক বলেন আর দলীয় বলেন, সবকিছুই কিন্তু আল্লাহর রহমতে আমার পক্ষে মেনটেইন করা সম্ভব। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিবপুরের ইটাখোলায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সাবেক এই সংসদ সদস্য বলেন, আমি সংসদ সদস্য থাকাকালীন শিবপুরে কী

উন্নয়ন হয়েছে, আর বর্তমানে কী উন্নয়ন হচ্ছে- আপনারা তা দেখছেন। ইটাখোলা-সিঅ্যান্ডবি, শিবপুর-দুলালপুর, কামরাব রাস্তা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চারতলা ভবন এবং উপজেলা প্রশাসন ভবন, নদী খনন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ আমার মাধ্যমেই হয়েছে। বাংলাদেশের ১৪টি আদর্শ উপজেলার মধ্যে শিবপুর উপজেলার নাম আমি অন্তর্ভুক্ত করেছিলাম। শিবপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন শিবপুর যুবলীগের সভাপতি তাজুল ইসলাম মোল্লা। এতে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন শিবপুর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াস সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। এছাড়া জেলা যুবলীগের সভাপতি বিজয় কৃষ্ণ ঘোষামী, ফকরুল ইসলাম মিতু, শিবপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামাল হোসেনসহ যুবলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। ২০১৮ সালের

৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে অংশ নিয়েছিলেন তৎকালীন সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। ভোট গ্রহণের দিন উপজেলার কুন্দারপাড়া এলাকার একটি কেন্দ্রে মিলন মিয়া নামে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর একজন এজেন্ট খুন হন। ওই ঘটনায় নিহত মিলনের স্ত্রী পারভীন বেগম বাদী হয়ে সিরাজুল ইসলামকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। পরে পুলিশের তদন্তে সিরাজুল ও তার ভাইসহ কয়েকজনকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাবেক সাংসদ সিরাজুল ইসলাম মোল্লা সাংবাদিকদের বলেন, আমি হত্যার রাজনীতিতে বিশ্বাসী নই। কেউ যাতে হত্যার রাজনীতি করতে না পারে- তাদের হুঁশিয়ারি দেওয়াই আমার এ বক্তব্যের উদ্দেশ্য।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ: